সংবাদ শিরোনাম :
জালালাবাদ এসোসিয়েশনের ৬ষ্ঠ চিকিৎসা সেবা প্রদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত জালালাবাদ এসোসিয়েশনের পঞ্চম চিকিৎসা সেবা প্রদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত জালালাবাদ এসোসিয়েশনের চতুর্থ চিকিৎসা সেবা প্রদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত জালালাবাদ এসোসিয়েশনের তৃতীয় চিকিৎসা সেবা প্রদান কার্যক্রম অনুষ্ঠিত জালালাবাদ এসোসিয়েশনের দ্বিতীয় চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত জালালাবাদ এসোসিয়েশন, ঢাকা’র পুনর্বাসন কার্যক্রমে সায়হাম গ্রুপের ১০ লক্ষ টাকা অনুদান জালালাবাদ এসোসিয়েশনের ত্রাণ বিতরণ আবুল মাল আব্দুল মুহিতের মৃত্যুতে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের শোক বিশ্বময় জালালাবাদ সম্প্রীতির বন্ধন ড. সৈয়দ মকবুল হোসেনের মৃত্যুতে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের শোক

জালালাবাদ এসোসিয়েশনের আয়োজনে ব্রিটেনে ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব সিলেট উৎসব

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত সিলেটের অধিবাসীদের রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পেশাগত সাফল্যকে উদ্‌যাপন করতে ২০১৮ সালের শেষ দিকে ব্রিটেনে বিশ্ব সিলেট সম্মেলন অথবা আন্তর্জাতিক সিলেট উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।

জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ইউকের উদ্যোগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর রোববার পূর্ব লন্ডনের হোটেল হলিডে ইনের ভিক্টোরিয়া সুইটে অনুষ্ঠিত কমিউনিটি নেতাদের সঙ্গে প্রথম নেটওয়ার্কিং সভায় এই উৎসবের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন সংগঠনের ঢাকার সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ সরকারের সাবেক যুগ্ম সচিব সৈয়দ জগলুল পাশা।
আগামী বছরের সেপ্টেম্বর কিংবা অক্টোবরে অনুষ্ঠিতব্য এই উৎসবকে সফল করতে তিনি সর্বস্তরের প্রবাসীদের সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রত্যাশা করে বলেন, বিশ্বজুড়ে সিলেটবাসীর অনন্য অর্জন ও সাফল্যকে উদ্‌যাপন করতে এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী সিলেট বিভাগের অধিবাসীদের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করতে ২০১৪ সাল থেকে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ঢাকা আন্তর্জাতিক সিলেট উৎসব করে আসছে।

তিনি বলেন, প্রথম বছর এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয় ভারতের কলকাতায়। এরপর ঢাকায় ও সিলেটে একসঙ্গে সপ্তাহব্যাপী উৎসব হয়েছে। গত ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য সিলেট উৎসব। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী বছর বিলাতে বিশ্ব সিলেট উৎসব আয়োজন করার জন্য জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ইউকের প্রস্তুতি শুরু হলো আজ থেকে। আজ এই হলে উপস্থিত কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরাও সম্পৃক্ত হলেন বিশাল এই আয়োজনের সঙ্গে। আপনাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা ও পরিপূর্ণ অংশগ্রহণে বিশ্ব সিলেট উৎসব বিলাতের গণ্ডি ছাড়িয়ে গোটা ইউরোপকে উৎসবে মাতাবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

যুক্তরাজ্যপ্রবাসী সিলেট অঞ্চলের মানুষের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ়করণ, তাদের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, কল্যাণ ও সংহতির প্রয়োজন পূরণ এবং বাংলাদেশের সঙ্গে প্রবাসী প্রজন্মের মধ্যে আস্থা ও নির্ভরতার সেতুবন্ধন গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে গঠিত জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ইউকের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় কমিউনিটি নেতা ও অ্যাকটিভিস্টদের সঙ্গে এই নেটওয়ার্কিং সভা। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আহ্বায়ক ও কমিউনিটি নেতা মুহিবুর রহমান মুহিব। সঞ্চালনা করেন মাহবুব রহমান।

সভার শুরুতে সংগঠনের আহ্বায়ক কমিটির পক্ষে এই সংগঠনের প্রয়োজনীয়তা, লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও পরিকল্পনা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক ও কলামিস্ট নজরুল ইসলাম বাসন, সাবেক জিপি ডা. আলাউদ্দিন আহমদ, গ্রেটার ম্যানচেস্টার বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের মো. মইনুল আমিন (বুলবুল) ও ব্যারিস্টার মাসুদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সৈয়দ জগলুল পাশা সংগঠনের ৭০ বছরের ইতিহাস, সাফল্য ও অর্জন এবং কর্মতৎপরতা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। তিনি সিলেট বিভাগের সকল প্রবাসীকে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের পতাকা তলে শামিল হওয়ার আহ্বান জানান।
এরপর উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, চ্যানেল এস-এর চেয়ারম্যান ও অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের (আয়েবা) প্রধান উপদেষ্টা আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএ) সদ্য সাবেক সভাপতি পাশা খন্দকার ও সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ মুনিম, স্পিকার অব টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল কাউন্সিলর সাবিনা আকতার, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশা, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবা, সাপ্তাহিক জনমত সম্পাদক ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সদ্য সাবেক সভাপতি নবাব উদ্দিন, ওয়েস্টমিনস্টার কাউন্সিলের কাউন্সিলর রীতা বেগম, ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সদ্য সাবেক সভাপতি মাহতাব চৌধুরী, ব্রিটিশ বাংলাদেশ ক্যামেরা অ্যাসোসিয়েশনের ভাইস চেয়ার আবুল কালাম আজাদ ছোটন, কর্নেল (অব.) আলী আহমদ, সাবেক কাউন্সিলর মতিনুজ্জামান, রোটারিয়ান আর কে ধর, ক্রয়ডনের কাউন্সিলর ও বেতার বাংলার ডিরেক্টর শেরওয়ান চৌধুরী, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএ) সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মুজাহিদ আলী চৌধুরী প্রমুখ।

সবশেষে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন আহ্বায়ক কমিটির সদস্য দিলওয়ার হোসেন। শুরুতে প্রধান অতিথি সৈয়দ জগলুল পাশাকে ফুলের তোড়া উপহার দেন মামুনুর রশীদ ও জুবের আহমদ।
নেটওয়ার্কিং ইভেন্টে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাবেক লিডার হেলাল উদ্দিন আব্বাস, সাবেক স্পিকার কাউন্সিলর খালেছ উদ্দিন আহমদ, সাবেক কাউন্সিলর হেলাল রহমান, সাপ্তাহিক জনমতের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আমিরুল ইসলাম চৌধুরী, সাবেক মেয়র ও সাবেক কাউন্সিলর সয়ফুল আলম, সাপ্তাহিক পত্রিকার প্রধান সম্পাদক মোহাম্মদ বেলাল আহমদ ও সম্পাদক মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী, রাজনৈতিক সম্পাদক ইসহাক কাজল, সাংবাদিক মতিউর রহমান চৌধুরী, সত্যবানীডটকমের প্রধান সম্পাদক সৈয়দ আনাস পাশা, সার্জন ডা. এম এ হক, জালালাবাদ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক জাকির হোসেন, কুশিয়ারা ক্যাশ অ্যান্ড ক্যারির স্বত্বাধিকারী ও ব্যবসায়ী হারুন মিয়া, দ্য রয়েল রিজেন্সির স্বত্বাধিকারী কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আবদুল বারী, কমিউনিটি নেতা আবদুল মতলিব, সাবেক কাউন্সিলর শাহিদ আলী, এসএসপি ইউকের প্রেসিডেন্ট ফারুক আহমদ, আসাদ উদ্দিন, দাউদপুর ইউনিয়ন হেল্পিং হ্যান্ডসের সিনিয়র অ্যাডভাইজার মোহাম্মদ আখলাকুর রহমান (লকু), গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের ভাইস চেয়ার রফিক আহমদ, কুইন্স পার্ক বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক জুবের আহমদ, আব্দুস সালাম, অ্যারোমা আইসক্রিম কোং-এর স্বত্বাধিকারী কাজী আব্দুল খালেদ, বাংলাদেশ সেন্টারের নির্বাহী কমিটির সদস্য আকতার আলী, পূর্ব মুরিয়া ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক সাদিক রহমান (বকুল), বালাগঞ্জ ওসমানী নগর এডুকেশন ট্রাস্টের মোহাম্মদ সাদ চৌধুরী, পলাশ সেবা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান শেখ ফারুক আহমদ, গোলাপগঞ্জ উপজেলা এডুকেশন ট্রাস্টের আমিনুল হক জিলু, চ্যানেল আই রিপোর্টার আব্দুর রশিদ, কসবা-খাসা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বেবুল, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকের প্রেসিডেন্ট ও জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ইউকের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর খান, ফ্রিল্যান্স রিপোর্টার ফজলুল হক, কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট গয়াসুর রহমান, বাংলাদেশ সেন্টারের কামরুল হাসান মুন্না ও আব্দুল বশির, বিয়ানীবাজার প্রগতি ট্রাস্টের মইনুল হক, একেএসএন কল্যাণ ট্রাস্টের মাসুদুল ইসলাম, ইউকে বিসিসিআই-এর ডিরেক্টর নাজমুল ইসলাম নুরু, ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (বিবিসিসিআই) ডিরেক্টর সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম, মৌলভীবাজার ওয়েলফেয়ার অ্যান্ড এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের প্রেসিডেন্ট আব্দুল আহাদ চৌধুরী, কুলাউড়া ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট রাজাউল হায়দার রাজু, ব্যারিস্টার আবু মুর্শেদ, গ্রেটার সিলেট সোসাইটির মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম জাহেদি ক্যারল, রুরাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের (আরডিএফ) চিফ এক্সিকিউটিভ ও সাপ্তাহিক জনমতের ডিরেক্টর জুনেদ চৌধুরী, গোলাপগঞ্জ হেল্পিং হ্যান্ডসের চেয়ারপারসন মোহাম্মদ তমিজুর রহমান রঞ্জু, ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার এজ ইন্সপায়ারেশন ১০০ এর উদ্যোক্তা সাবেক কাউন্সিলর আব্দাল উল্লাহ, হিউম্যান রাইটস বাংলাদেশের ইউকে শাখার সেক্রেটারি তেরাউল ইসলাম, বাংলাদেশ সেন্টারের প্রধান নির্বাহী মুস্তাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএ) সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন, আবু সায়িদ মোহাম্মদ আহমদ, এ কে এম শামসুজ্জামান (বাহার), আসাদ উদ্দিন, রশিদ আহমদ, লেখক-গবেষক ফারুক আহমদ, চ্যানেল এস-এর রেজাউল করিম মৃধা, কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট ও ব্যবসায়ী শাহেদ আহমদ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরো খবর..